স্ত্রীকে ওড়না ও ৬মাস বয়সী মেয়েকে গলাটিপে হত্যা মাদকাসক্ত বাবার

0
124
0 Shares

বগুড়া প্রতিনিধিঃ বগুড়ার সারিয়াকান্দি উপজেলার যমুনার চরে শেফালী বেগম (২৪) ও তার ৬মাস বয়সী মেয়ে রুমানা হত্যাকান্ডের রহস্য উন্মোচন করেছে পুলিশ। পারিবারিক কলহের জের ধরে গলাটিপে প্রথমে ৬মাস বয়সী নিজ সন্তান রুমানাকে, পরে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে স্ত্রী শেফালীকে হত্যা করে আল আমিন (২৮)। গত বৃহস্পতিবার বগুড়ার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ ওমর ফারুকের আদালতে ফৌজদারী কার্যবিধি ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি প্রদান করেছে আল আমিন।

শুক্রবার সকালে জেলা পুলিশের পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়। গত ২৮ই ফেব্রুয়ারী সারিয়াকান্দি উপজেলার বোহাইল ইউনিয়নের দক্ষিণ শংকরপুর গ্রামে ভূট্টাক্ষেত থেকে শেফালী বেগম (২৪) ও তার ৬মাস বয়সী মেয়ে রুমানার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। শেফালীর পিতা মোঃ ওসমান মন্ডল বাদী হয়ে পরের দিন সারিয়াকান্দি থানায় অজ্ঞাত আসামিদের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। পরে তদন্তের স্বার্থে ২১ই মার্চ শেফালীর স্বামী আল আমিনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

আল আমিন যমুনার চরাঞ্চলে মোটরসাইকেল চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করতো। তার অভাবের সংসার ছিল, টাকা-পয়সার জন্য প্রায়ই তার স্ত্রীর সাথে ঝগড়া বিবাদ লেগে থাকত। আট বছর পূর্বে সে প্রেম করে শেফালী বেগম কে বিয়ে করে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আল আমিন হত্যাকাণ্ডের সাথে তার সংশ্লিষ্টতা সম্পূর্ণ রুপে অস্বীকার করে। অধিকতর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আল-আমিনকে আদালতের প্রেরণ করে রিমান্ডের আবেদন করা হয়। আদালত ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

রিমান্ডে নিয়ে আলামিন কে ব্যাপকভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় এবং হত্যাকাণ্ডের সাথে তার সংশ্লিষ্টতার বিষয়ে পুলিশের উদ্ধারকৃত তথ্য-প্রমাণ উপস্থাপন করা হয়। এক পর্যায়ে আলামিন হত্যাকাণ্ডের সাথে তার সংশ্লিষ্টতা স্বীকার করে। জবানবন্দিতে সে জানায়, পারিবারিক কলহের জের ধরে গত ২৭ই ফেব্রুয়ারী রাতে আল আমিন প্রথমে তার ৬ মাস বয়সী কন্যা সন্তান রোমানাকে গলা টিপে হত্যা করে। এরপর আল আমিন তার স্ত্রী শেফালী বেগম (২৪) কে গলায় ওড়না পেচিয়ে শ্বাসরোধ হত্যা করে।

হত্যাকাণ্ডের পরদিন সে নিজেই অন্যান্য আত্মীয়-স্বজনের সাথে ভুট্টা ক্ষেতে লাশ খুঁজতে যায় এবং এ সম্পর্কে সে কিছুই জানেনা এমন অভিনয় করতে থাকে। আল আমিন আরও জানায় সে নিয়মিত গাঁজা সেবন করতো এবং হত্যাকাণ্ডের দিন সে একটু পরিমানে বেশি গাঁজা সেবন করেছিলো। সারিয়াকান্দি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মিজানুর রহমান জনায়, গ্রেফতারকৃত আল আমিন আদালতে জবানবন্দী দিয়েছেন। পরে তাকে কারা গারে প্রেরণ করা হয়েছে।

জিএম মিজান / দৈনিক সংবাদপত্র 

0 Shares

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here