সিলেটের বিশ্বনাথে জমি জমা বিরোধের জের ধরে এক চাচাতো ভাইকে দু’পায়ের রগ কেটে ও হাত-পা ভেঙ্গে দিয়েছে অপর চাচাতো ভাইয়েরা।

0
223

সিলেট প্রতিনিধিঃ গত মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে উপজেলার দশঘর ইউনিয়নের দশঘর গ্রামের এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় গুরুত্বর জখমী মতিউর রহমানকে সিলেট ওসমানী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বৃট্রিশ সরকারের টেরোরিষ্ট তালিকার অন্যতম উগ্র সন্ত্রাসী যাবৎজীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামী আঙ্গুর মিয়া উরফে মিজানুর রহমানের নেতৃত্বে এ সন্ত্রাসী ঘটনা ঘটে। মিজানুর রহমান মতিউর রহমানের আপন চাচাতো ভাই।

বিভিন্ন সুূত্রে জানাযায়, দশঘর গ্রামের সাদেকুর রহমান উরফে হুর আলী’র পুত্র মতিউর রহমান বিশ্বনাথ বাজারের একজন ব্যবসায়ী। মঙ্গলবার সন্ধা ৭টায় দোকান বন্ধ করে বাড়িতে যাওয়ার পথে পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে ওৎ পেতে থাকা মিজানুর রহমানের নেতৃত্বে তার চাচাতো ভাইগণ ও বহিরাগত অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীগণ মতিউর রহমানকে ধরে পাশের একটি বাসায় নিয়ে যায়। প্রথমে সন্ত্রাসীরা সকলে মিলে মতিউর রহমানের দু’পায়ের রগ কেটে দেয়। তারপর এক এক করে হাত-পা ভেঙ্গে উল্লাস করে সন্ত্রাসীরা।

মতিউর রহমানের মুখ কাপড় দিয়ে বেধে দেয়ায় কোন চিৎকার করতে পারেনি। একপর্যায়ে মতিউর রহমানকে মৃত মনে করে রাস্তা ফেলে দেয় তারা। পরে পথিক লোকের মাধ্যমে খবর পেয়ে আত্নীয়স্বজন তাকে হাসপাতালে ভর্তি করেন।

সরজমিনে হাসপাতালে গিয়ে মতিউর রহমানের এমন নির্মম অমাবিক ও নিষ্টুর এ ঘটনা দেখে চুখের জল ধরে রাখতে পারেন নি অনেকেই। গত দুই যুগেও এ উপজেলায় এধরনের সন্ত্রাসী কর্মকান্ড ঘটেনি। মতিউর রহমানের চাচাতো ভাই মৃত ঠাকুর মিয়া উরফে মর্তুজ আলী’র পুত্র মিজানুর রহমান ছিলেন যুক্তরাজ্য প্রবাসী। সেখানে উগ্র সন্ত্রাসীর ঘটনায় জড়িত থাকায় বৃট্রিশ সরকার তাকে যাবৎজীবন কারাদন্ড দেয় এবং অবশেষে পাসপোট বাতিল করে দেশে পাঠায়। দেশে আসার পর মিজানুর রহমান চাচা সাদেকুর রহমানের সাথে অসৌজন্য মুলক আচরণ করতে থাকে। এতে মতিউর রহমান বাধা আপত্তি দিলে মিজানুর রহমান তাকে হত্যা’র পরিকল্পনা করে। এঘটনায় পূরো বিশ্বনাথে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। মতিউর রহমানের পিতা বাদী হয়ে বিশ্বনাথ থানায় ১১জনকে আসামী করে একটি এজাহার দাখিল করেছেন।

এ ব্যাপারে থানার মীম মুসা জানান, ঘটনাটি শুনেছেন, অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নিবেন।

আবু সুফিয়ান/ দৈনিক সংবাদপত্র

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here