সাইবার বুলিং প্রতিহত করতে সবাইকে সচেতন হতে হবে : মেহজাবিন

0
460

মেহজাবিন দেশীয় নাটকের অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেত্রী মেহজাবিন চৌধুরী। যার নামেই নাটক হিট! দর্শকরা অপলক দৃষ্টিতে দেখেন তার অভিনয়। নানা রকম চ্যালেঞ্জিং চরিত্রে অভিনয় করে অনেক আগেই অর্জন করেছেন পরিচালকদের আস্থা। নাটকে প্রযোজক-পরিচালকদের প্রথম পছন্দ এই অভিনেত্রী। তাই নাটকের কাজে তাকে ব্যস্তও থাকতে হয় প্রচণ্ড। বর্তমান সময়ের ব্যস্ততা ও সমকালীন নাটক-নির্মাণ নিয়ে তিনি কথা বলেছেন। সঙ্গে ছিলেন রকিবুল ইসলাম রাকিব-

রকিবুল : নতুন নাটকটিতে যে চরিত্রে কাজ করছেন তার সম্পর্কে কিছু বলুন-

মেহজাবিন : এ নাটকটি তে একটু থ্রিল আছে, একটু ক্রাইম আছে, একটু ড্রামা আছে। সব মিলিয়ে নিম্ম মধ্যবিত্ত ফ্যামিলির একটি পরিবারের গল্প দেখানো হবে। যেখানে আমি নিশো ভাইয়ের স্ত্রীর ভুমিকায় অভিনয় করেছি। নাটকটিতে দেখানো হয়েছে আমাদের জীবনে একটি ঘটনা ঘটে যায় এবং কিভাবে আমরা এই ঘটনাট সামাল দিলাম সেই গল্প।

রকিবুল : সামনে আর কি কি কাজ আসছে আপনার?

মেহজাবিন : মাত্র তো ঈদ গেল। তারউপর ছিলো লকডাউন। কাজ কম হচ্ছে। তবে নিউ ইয়ার, ভ্যালেন্টাইন, পূজাকে সামনে রেখে কিছু কাজ বাড়ছে। যদি করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকে তাহলে ইনশাআল্লাহ সামনে বেশ কিছু কাজ আসবে।

রকিবুল : আপনার চলচ্চিত্রে কাজ করা নিয়ে অনেক কথা হয়। এ বিষয়ে আপনার পরিকল্পনা কি?

মেহজাবিন : আমার কোনো পরিকল্পনা নেই। যদি কখনো ব্যাটে বলে মিলে যায় জানতে পারবেন।

রকিবুল : ওয়েব সিরিজে কাজ করতে সবাই আগ্রহী এখন। আপনাকে কবে দেখা যাবে?

মেহজাবিন : কথা তো চলছে বেশ কিছু ওয়েব সিরিজ নিয়ে। যদি চরিত্র ও গল্প ভালো লাগে তাহলে করব। শিগগিরই হয়তো করা হবে।

রকিবুল : আপনি তো ২০০৯ সালে লাক্স চ্যানেল আই সুপারস্টার হয়েছিলেন। তখনকার অনুভূতি ও এখনকার যে স্টার মেহজাবিন, এই অনুভুতির পার্থক্যটা কেমন?

মেহজাবিন : হা হা হা…. আমি নিজেকে স্টার মনে করি না কখনোই। প্রায় ১০ বছর কাজ করছি। আগে তেমন কোনো অভিজ্ঞতা ছিলো না। একটা প্লাটফর্মে সেরা হয়েছিলাম। অবশ্যই সেটা দারুণ আনন্দ দিয়েছিলো। আজকের এই পথটাকে তৈরি করে দিয়েছে। অনুভূতি ছিলো অসাধারণ। এখনকার সময়টাও খুব এনজয় করি। তবে দায়িত্ববোধ বেশি কাজ করে। ভালো কাজের তাগিদ বোধ করি। অভিজ্ঞতা বেড়েছে।

রকিবুল : অনেক তারকারাও আপনার কাজকে পছন্দ করে। প্রায়ই তারা নানারকম প্রশংসা করেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। এইটা আপনি কীভাবে উপভোগ করেন?

মেহজাবিন : আসলে প্রায় ১০ বছর ধরে কাজ করে যাচ্ছি অনেক অভিনেতা বা অভিনেত্রী আছে যাদের সাথে সবসময় হয়তোবা দেখা হয় না। কিন্তু কাজের জন্য অনেকে ফোনে ফিডব্যাক দেন। ভালো লাগে। সিনিয়র যারা আছেন তারা যখন বলেন যে ওই কাজটা ভালো হয়েছে তখন খুব ভালো লাগে। আরো ভালো কাজ করার অনুপ্রেরণা পাই। আসলে আমার সব কাজের কৃতিত্ব আমি কো-আর্টিস্টদেরকে দিতে চাই। কারণ তারা আমাকে সহযোগিতা না করলে আমার ভেতর থেকে এই কাজগুলো বের হতো না।

রকিবুল : আপনার প্রিয় অভিনেতা হুমায়ূন ফরীদি ও আফরান নিশো। এই দুই অভিনেতাকে নিয়ে কিছু কথা বলুন-

মেহজাবিন : আসলে হুমায়ূন ফরীদি স্যারকে কে না পছন্দ করে! তিনি সবার প্রিয়। তার অভিনয়, সেন্স অব হিউমার সবই আমার দারুণ লাগে। আর আফরান নিশো ভাইয়ের সাথে আমার অনেক ভালো ভালো কাজ হয়েছে। তাই পছন্দের তালিকায় তিনিও আছেন। একজন ডাইনামিক অভিনেতা। আর অপূর্ব ভাইয়ের নামটাও আমি যোগ করতে চাই। আমার খুব পছন্দের একজন অভিনেতা ও মানুষ।

রকিবুল : প্রেম ও বিয়ে নিয়ে নানা গুঞ্জন মেহজাবিনকে প্রায়ই আলোচনা রাখে-

মেহজাবিন : আলোচনা ভালো লাগে। হা হা হা… আসলে ভবিষ্যৎ সম্পর্কে বলা খুব মুশকিল। হয়তো ২-৩ বছরের মধ্যেই বিয়ে করে ফেলতে পারি। আমি কাজের মানুষ, কাজ নিয়েই আপাতত থাকতে চাই।

রকিবুল : সাইবার বুলিং সম্পর্কে আপনার অভিজ্ঞতা বা পরামর্শ কিছু থাকলে বলুন-

মেহজাবিন : খুব মারাত্মক একটা সমস্যা হয়ে দেখা দিচ্ছে এটি। সোশ্যাল মিডিয়ায় নানাভাবে সাইবার বুলিং হচ্ছে। শোবিজের মানুষেরা শিকার হচ্ছে বেশি। এ সম্পর্কে যদি বলতে হয় তাহলে আমি বলব- দর্শকদের ম্যাসেজ দেয়ার জন্য আমি একটা নাটক করে ছিলাম। নাম ‘ভাইরাল গার্ল’। নাটকটি পরিচালনা করেছিলেন কাজল আরেফিন অমি। নাটকটি কিন্তু অনেক প্রশংসিত হয়। এটা আমার জীবনের বেস্ট একটা কাজ বলে আমি মনে করি। এ নাটকে সাইবার বুলিংয়ের মানুষকে সচেতন করার অনেক বার্তা ছিলো। সাইবার বুলিং প্রতিহত করতে সামাজিক সচেতনতা বাড়াতে হবে। নিজেদেরকে সচেতন হতে হবে।

রকিবুল : আপনার ভক্তদের উদ্দেশে কিছু বলুন?

মেহজাবিন : আমাকে যারা ভালোবাসেন, যারা আমাকে সাপোর্ট করেন তাদের কাছে আমার একটাই আবেদন- সবসময় এভাবেই ভালোবেসে যাবেন। আমি চেষ্টা করে যাবো আপনাদের মন ছুঁয়ে যায় এমন কাজ করে যেতে।

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here