মুসলমানদের উপর উগ্রবাদীদের হামলা ও অগ্নিসংযোগের প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল

0
275
ফাইল ছবি

নবীগঞ্জ প্রতিনিধিঃ নবীগঞ্জ তালামীযে ইসলামিয়া মুসলমানদের উপর দিল্লিতে উগ্রবাদীদের হামলা ও অগ্নিসংযোগের প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। আজ শনিবার পাঁচটার সময় নবীগঞ্জ আল আকসা জামে মসজিদ থেকে মিছিল বের হয়ে শহরের নতুন বাজার মোড় মধ্যবাজার ওসমানীরোডসহ গুরুত্বপূর্ণ এলাকা প্রদক্ষিণ করে মিছিল শেষে আব্দুল মতিন স্কয়ারে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় বক্তারা বলেন ভারতের উগ্রবাদী হিন্দুরা ভারত সরকারের প্রত্যক্ষ মদদে মুসলমানদের নির্বিচারে হত্যা করা হচ্ছে। মুসলমানরা এসব বরদাশ করতে পারে না। মুসলিম মা-বোনদের নির্যাতন করা হচ্ছে চোখে এসিড নিক্ষেপ করে মুসলমানদের অন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে। তাদের ঘরবাড়ি দোকানপাট ও মসজিদে আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দিচ্ছে। এসব মুসলমানরা সহ্য করতে পারেনা।

বক্তারা এসব ঘৃণিত কাজ এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান এসময় বক্তারা আরো বলেন মুজিব বর্ষে কুখ্যাত সন্ত্রাসী নরেন্দ্র মোদির রাষ্ট্রীয় আমন্ত্রণ বাতিল করা হোক। আর না হলে ঢাকার রাজপথে লাশের মিছিল হবে বলে হুশীয়ারী করেন বক্তারা।

এসময় নরেন্দ্র মোদিকে করোনা ভাইরাস এর সাথে তুলনা করে বলেন নরেন্দ্র মোদী আসলে যেমন ভাবে করোনা ভাইরাসে মানুষের মৃত্যু হচ্ছে নরেন্দ্র মোদী আসলেও লাশের বন্যা বসবে।

শামসুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও সাইদুল ইসলামের পরিচালনায় বক্তব্য প্রদান করেন বাংলাদেশ আনজুমানে তালামীযে ইসলামিয়ার কেন্দ্রীয় প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক কাজী এম এ কাজী হাসান আলী,কেন্দ্রীয় আনজুমানে তালামীযে ইসলামিয়ার অফিস সম্পাদক আব্দুল মুহিত রাসেল,অন্যনদের মধ্যে বক্তব্য ও উপস্থিদ ছিলেন কাজী মাহবুব আলম,নবীগঞ্জ উপজেলা শাখার সাবেক সভাপতি জালাল উদ্দিন মোহাম্মদ ধন মিয়া,হবিগঞ্জ জেলা তালামীযে ইসলামীয়ার সাধারন সম্পাদক সাইদুর রহমান, পৌর আনজুমানে আল ইসলার সদস্য সচিব ইব্রাহীম ইউসুফ, নবীগঞ্জ উপজেলা তালামীয়ে ইসলামীয়ার সাবেক সাধারন সম্পাদক আবুল কাশেম চয়ন,পৌর তালামীযে ইসলামীয়ার সাধারন সম্পাদক শাহরিয়ার আহমেদ শাওন,ইসলামী সৃতি পরিষদের সভাপতি সানু মিয়া,নবীগঞ্জ উপজেলা তালামীযে ইসলামীয়ার সাংগঠনিক সম্পাদক ফয়েজ আহমদ নোমান,।

কাজী এম হাসান আলী বলেন মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মুদিকে দাওয়াত দিয়ে আনছেন আমরা অনুরোধ করছি দাওয়াত প্রত্যক্ষান করুন। নরেন্দ্র মুদি তার গুন্ডা বাহিনী দিয়ে আমাদের কলিজায় আঘাত করেছে। কয়েকশত শতাধীক মুসলমান কে হত্যা করা হয়েছে। এই মুদি বাংলাদেশে আসতে পারে না। এটা কোন অবান্তরিন বিষয় নয় এটা মুসলমানদের উপর আঘাত আমার ভাইদের প্রতি আঘাত, এটা মেনে নেওয়া যায়না। আমার পীরও মুর্শেদ হযরত আল্লামা ফুলতলী ছাহেব (রাঃ) সৈয়দপুরের মাটিতে অন্যায়ের প্রতিবাদ করেছেন রক্ত দিয়েছেন। আমরাও সইরাচারের বিরোদ্ধে রক্ত দিয়ে ঈমানি দায়িত্ব পালন করব। সর্বপরী সকল বিশ্বের মুসলমানরা এক হওয়ার আহবান করেন তিনি।

তালামীযে ইসলামীয়ার কেন্দ্রীয় অফিস সম্পাদক আব্দুল মুহিত রাসেল তিনি বলেন বাংলাদেশের মাটি আমরা অপবিত্র করতে দেব না। প্রয়োজনে আমরা শহীদ হয়েও বাংলার মাটি পবিত্র রাখব।আজকের আন্দোলন শুধু তালামীযে ইসলামীয়া আনজুমানে আল ইসলার আন্দোলন নয়। এটা সারা বিশ্বের মুসলমানদের আন্দোলন। এই আন্দলোন কেউ ঠেকাতে পারবে না।

শাহরিয়ার আহমেদ শাওন / দৈনিক সংবাদপত্র 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here