বঙ্গবন্ধু বাঙালি জাতির আলোকবর্তিকা, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য

0
97
বঙ্গবন্ধু বাঙালি জাতির আলোকবর্তিকা চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য
বঙ্গবন্ধু বাঙালি জাতির আলোকবর্তিকা চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য
0 Shares

চট্টগ্রাম প্রতিনিধিঃ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার বলেছেন, বাংলার অবিসংবাদিত নেতা হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাঙালি জাতির আলোকবর্তিকা; যাঁর আলোয় বাঙালি জাতি আজ বিশ্ব দরবারে স্বমহিমায় আলোকিত; তাইতো তিনি বিশ্ব নেতা শেখ মুজিব। ১৫ই আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর ৪৫ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় আয়োজিত উপাচার্য দপ্তরের সম্মেলন কক্ষে


সকাল ১০.৩০ টায় অনুষ্ঠিত ‘বঙ্গবন্ধু’র জীবন ও কীর্তি’ এবং ‘শোকাবহ ১৫ আগস্ট’ শীর্ষক আলোচনা সভায় সভাপতির ভাষণে তিনি এসব কথা বলেন। মাননীয় উপাচার্য তাঁর ভাষণের শুরুতে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, রাজনীতির মহাকবি, স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশের মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং ’৭৫ এর ১৫ই আগস্ট হায়েনাদের হাতে নির্মমভাবে শহীদ বঙ্গবন্ধু পরিবারের সদস্যদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।


তিনি বলেন, ১৫ই আগস্টের ক্ষত চিহ্ন বাঙালি জাতিকে বয়ে বেড়াতে হবে যুগ যুগ ধরে। এ মহাপুরুষ মা-মাটি ও মানুষকে ভালোবাসতেন বলেই বাঙালি জাতির জন্য নিজের জীবন উৎসর্গ করেছিলেন। মৃত্যুঞ্জয়ী এ মহাপুরুষ কে স্বপরিবারে হত্যা করে হায়নার দল চেয়েছিল বাঙালি জাতিকে বিশ্ব মানচিত্র থেকে নিশ্চিহ্ন করতে; কিন্তু তাতে তারা সফল হয়নি। পক্ষান্তরে হায়নার দল আস্তাকুড়ে নিক্ষিপ্ত হয়েছে। তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার সুযোগ্য গতিশীল নেতৃত্বে বাংলাদেশ অদম্য গতিতে এগিয়ে চলেছে।


অন্ধকারের কোন অপশক্তি এ গতি রোধ করতে পারবে না। মাননীয় উপাচার্য তাঁর বক্তব্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অগ্রযাত্রার এ ভিশন ও মিশনকে এগিয়ে নিতে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে দেশের উন্নয়ন-অগ্রগতিতে স্ব স্ব অবস্থান থেকে ভূমিকা রাখার আহবান জানান। আলোচনা সভার শুরুতে সূচনা বক্তব্য রাখেন চবি রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর এস এম মনিরুল হাসান। চবি প্রশাসন আয়োজিত অনুষ্ঠানমালায় চবি সিনেট ও সিন্ডিকেট সদস্যবৃন্দ, অনুষদের ডিনবৃন্দ, শিক্ষক সমিতির নেতৃবৃন্দ, হলের প্রভোস্টবৃন্দ,


বিভাগীয় সভাপতি, ইনস্টিটিউট ও গবেষণা কেন্দ্রের পরিচালকবৃন্দ, শিক্ষকবৃন্দ, প্রক্টর ও সহকারী প্রক্টরবৃন্দ, অফিস প্রধানবৃন্দ, বঙ্গবন্ধু পরিষদের নেতৃবৃন্দ, অফিসার সমিতি, কর্মচারী সমিতি ও কর্মচারী ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ, শিক্ষার্থীবৃন্দ এবং বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলওয়াত এবং বিশেষ মুনাজাত পরিচালনা করেন চবি কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের খতিব হাফেজ আবু দাউদ মুহাম্মদ মামুন,


গীতা থেকে পাঠ করেন চবি রসায়ন বিভাগের প্রফেসর ড. তাপসী ঘোষ রায় এবং পবিত্র ত্রিপিটক থেকে পাঠ করেন চবি পালি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক জনাব অরূপ বড়ুয়া। অনুষ্ঠানে দাঁড়িয়ে একমিনিট নীরবতা পালন করা হয়। সকাল ১০ টায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের পক্ষ থেকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্প স্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার। অতঃপর পুস্পমাল্য অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন চবি শিক্ষক সমিতি, হলের প্রভোস্টবৃন্দ, বঙ্গবন্ধু পরিষদ, অফিসার সমিতি এবং বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।


জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভবন সমূহে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত ও কালো পতাকা উত্তোলন করা হয়। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু সহ ১৫ই আগস্ট শাহাদাৎ বরণকারী অন্যান্য শহীদদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে ফজরের নামাজের পর বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল মসজিদে দোয়া মাহফিল, বিশেষ মোনাজাত এবং অন্যান্য ধর্মাবলম্বীদের স্ব স্ব উপাসনালয়ে বিশেষ প্রার্থনা অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়া, অনুষ্ঠানে আগত বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের সদস্যবৃন্দ কালো ব্যাজ ধারণ এবং মাস্ক পরিধান করে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে জাতীয় শোক দিবসের কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেন।


মোহাম্মদ জিপন উদ্দিন / দৈনিক সংবাদপত্র 

0 Shares

পোস্ট টি সম্পর্কে আপনার মতামত জানানঃ