বগুড়ায় লকডাউনে টহল দিচ্ছে সেনাবাহিনী ও বিজিবি

0
27
0 Shares

বগুড়া প্রতিনিধিঃ করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে বৃহস্পতিবার ভোর থেকে দেশে ৭ দিনের কঠোর লকডাউন চলছে। সারাদেশের ন্যায় বগুড়াতেও কঠোর লকডাউন বাস্তবায়নে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবিসহ সেনাবাহিনীর সদস্যরা মাঠে রয়েছেন। এছাড়া শহরের মেইন পয়েন্টগুলোতে ফাঁকা থাকলেও উপ শহর, হাকিড় মোড়, নামাজগড়, চেলোপাড়া, বউবাজার, রহমাননগর, জহুরুল নগরসহ বিভিন্ন অলিগলিতে চায়ের দোকান এবং অন্যান্য দোকানের সামনে মানুষের জটলা দেখা যায়।

সর্বাত্মক লকডাউনের প্রথম দিন সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণের জন্য বগুড়ার জেলা প্রশাসক মোঃ জিয়াউল হক এবং পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভূঞা সকাল সাড়ে ৯ টায় শহরের জিরো পয়েন্টে অবস্থান নেয়। তারা প্রায় আধা ঘন্টা অবস্থানকালে লকডাউন কার্যকরের পদ্ধতি নিয়ে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দেন। জেলা প্রশাসক মোঃ জিয়াউল হক বলেন, বগুড়া শহরে সেনাবাহিনী, বিজিবিসহ অন্যান্য বাহিনীর সদস্যদের নিয়ে লকডাউন কার্যকর করার জন্য ৬ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া উপজেলা পর্যায়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং সহকারি কমিশনার (ভূমি) নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি বলেন, সেনাবাহিনীর দু’টি পেট্রোল টিম ও বিজিবির দুই প্লাটুন সদস্য মোতায়েন রয়েছে। কর্তব্যরত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নাসিম রেজা বলেন, তারা সকাল থেকেই দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। সকাল থেকেই বৃষ্টি হচ্ছে বলে এমনিতেই শহরে মানুষের সংখ্যা খুবই কম। জরুরী প্রয়োজন ছাড়া কেউ বের হচ্ছেন এমন কাউকে পাওয়া যায়নি। তাই আইন লংঘনের দায়ে কারও বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থাও নেওয়া হয়নি।

র‌্যাব-১২ বগুড়া ক্যাম্পের উপ-সহকারি পরিচালক (ডিএডি) জাহিদুল ইসলাম এ প্রতিবেদক-কে বলেন, তাদের দুইটি টহল টিম মাঠে সক্রিয় রয়েছে। বগুড়া সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (জেলা পুলিশের মুখপাত্র) ফয়সাল মাহমুদ এ প্রতিবেদক-কে বলেন, লকডাউনের প্রথম দিন জরুরী প্রয়োজন ছাড়া কোন মানুষকে বের হতে দেখা যায়নি। লকডাউন সম্পর্কে গত কয়েকদিন ধরেই আমরা জনগণকে অবহিত করে আসছিলাম। তার পরেও লকডাউন কার্যকর করতে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

বগুড়ার জেলা প্রশাসক মোঃ জিয়াউল হক সর্বাত্মক লকডাউন কার্যকর করতে বগুড়াবাসীর সহযোগিতা কামনা করে এ প্রতিবেদক-কে বলেন, ‘জীবন বাঁচার জন্যই এই লকডাউন। এটা আমাদের সবাইকে মানতে হবে। এ জন্য সব শ্রেণি-পেশার মানুষের সহযোগিতা প্রয়োজন। সবার সহযোগিতা পেলে আমরা করোনা ভাইরাসকে নিয় ন্ত্রন করে স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পারবো।

জিএম মিজান

0 Shares

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here