প্রেম অতঃপর স্কুল ছাত্রীকে গলা টিপে হত্যা

0
236

সোনাইমুড়ী প্রতিনিধিঃ নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীতে প্রেমের সর্ম্পকের জের ধরে ১০ম শ্রেণির স্কুল ছাত্রী রিয়া মনি (১৬) কে গলা টিপে হত্যা করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার রশিদপুর গ্রামে সোমবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে।
এই ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে একই গ্রামের রাকিব, হাবিব ও ফেন্সী নামে ৩ যুবক-যুবতীকে থানা পুলিশ আটক করেছে।
স্থানীয় এলাকাবাসী ও নিহতের পিতা আবদুল গফুর জানান, প্রতিদিনের ন্যয় সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে স্কুল ছাত্রী রিয়া মনি বাড়ি থেকে বিদ্যালয়ে যাওয়ার উদ্দেশ্যে রওনা হয়। সে উপজেলার রশিদপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির ছাত্রী। স্কুলে ১ঘন্টা ক্লাস করে বইয়ের ব্যাগ নিয়ে স্কুল থেকে ছুটি না নিয়ে বেরিয়ে পড়ে। দুপুর ২টার দিকে পাশের বাড়ির জিহাদ ও স্বপন নামে ২ যুবক তার লাশ পড়ে থাকতে দেখে পাশের বাড়ির পরিত্যক্ত্য বাগানে। খবরটি এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে লোকজন ঘটনার স্থলে এসে ভিড় জমায়। খবর পেয়ে ঐ দিনই সন্ধ্যা ৭টার দিকে সোনাইমুড়ী থানার এস.আই রেজাউল করিম লাশটি উদ্ধার করে প্রাথমিক সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে ময়না তদন্তের জন্য নোয়াখালী সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়।
পুলিশ জানিয়েছেন, পাশের বাড়ির পরিত্যক্ত্য বাগানে লাশটি পাওয়া যায়। লাশের পাশে স্কুলের ব্যাগ ও পাশে আমগাছে চাদুর ঝুলানো থাকে। লাশ থেকে ২০০ গজ দূরে কবরস্থানে স্কুল ছাত্রীর হাতেপরানো চুড়ির ভাঙ্গাংশ পাওয়া যায়। প্রাথমিক সুরুতহাল রির্পোটে জানা যায়, স্কুল ছাত্রীটি ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেনি। কে বা কাহারা তাকে গলা টিপে হত্যা করেছে। নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, স্কুল ছাত্রী রিয়া মনি মোবাইল ব্যবহার করতো না। তার মায়ের ব্যবহারিত মোবাইল ফোন দিয়ে প্রতিনিয়ত সে ঘন্টার পর ঘন্টা কথা বলতো। তাদের ধরণা সে কারো সাথে প্রেম করতো। এই প্রেমের সূত্র ধরেই তাকে গলা টিপে হত্যা করা হয়েছে।
সোনাইমুড়ী থানার ওসি আবদুস সামাদ নিহতের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে সাংবাদিকদের জানান, লাশটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এই পর্যন্ত নিহতের পরিবার থেকে কোন মামলা বা লিখিত অভিযোগ থানায় করেনি। তবে তদন্তকারী কর্মকর্তা স্কুল ছাত্রীর বই তল্লাশী করে প্রেমের বিভিন্ন চিরকুট উদ্ধার করে ও নিহতের মায়ের ব্যবহারিত মোবাইল ফোন জব্ধ করা হয়েছে। এই ঘটনায় জিজ্ঞাবাদের জন্য ৩ যুবক-যুবতীকে আটক করা হয়েছে।

মনিরুল ইসলাম ফয়সাল/ দৈনিক সংবাদপত্র

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here