পাইকগাছায় ভিজিডি কার্ড দেওয়ার নামে টাকা নেওয়ার অভিযোগ

0
45
0 Shares

খুলনা প্রতিনিধিঃ খুলনার পাইকগাছায় দুস্থ ও অসহায় নারীদের ভিজিডির তালিকায় নাম দেওয়ার কথা বলে ওয়ার্ড মেম্বারের বিরুদ্ধে টাকা নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। আঃ সাত্তার নামের ব্যক্তি ৭নং গদাইপুর ইউনিয়ন পরিষদের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার। তবে টাকা দেওয়ার পরেও ভিজিডির তালিকায় নাম না ওঠায় ক্ষুব্ধ জাহাঙ্গীর ও তার পরিবার। জাহাঙ্গীর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) কাছে অভিযোগ করবেন বলে জানিয়েছে। জানা যায়, আনুমানিক চার থেকে ৫ মাস আগে গরিব অসহায় জাহাঙ্গীর ভিজিডির তালিকায় নাম অন্তর্ভুক্ত করার জন্য ওয়ার্ড মেম্বারের সাথে যোগাযোগ করে

মেম্বার ভুক্তভুগির কাছে চার হাজার টাকা দাবী করেন। তাৎক্ষণিক ভাবে কাছে টাকা না থাকায় বাড়ি চলে যান। পরে টাকা ম্যানেজ করে মেম্বারের সাথে যোগাযোগ করলে মেম্বারের কাছের সুপরিচিত একই ওয়ার্ডের ভনু গোলদারের ছেলে নূরআলী গোলদার এর কাছে টাকা জমা দিতে বলেন। সে মতে জাহাঙ্গীর এর মা নূরআলী গোলদার এর কাছে ৪ হাজার টাকা দেন। কিন্তু চূড়ান্ত তালিকায় জাহাঙ্গীর ও তার পরিবারের নাম না থাকায় তিনি ক্ষুব্ধ হন। সরেজমিনে বুধবার ৪ নং ওয়ার্ডের গোপালপুর গ্রামের জাহাঙ্গীর এর সাথে কথা বলতে গেলে তিনি বলেন, মেম্বারের কথা মতে নূরআলী ভুক্তভুগির কাছ থেকে চার হাজার টাকা

সাথে ছবি আইডি কার্ড এর ফটোকপি নেন। পরে জানতে পারেন, চুড়ান্ত তালিকায় তার নাম নেই। আমি এর বিচার চাই আমার মতো গরিব অসহায় ব্যেক্তির সাথে এ রকম কেন করলো। একই ধরনের অভিযোগ করেন একই গ্রামের আরও সাত-আটজন নারী। এ বিষয় নুরআলী গাজির কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, সাত্তার মেম্বারের কথা মতে তাদের কাছ থেকে টাকা নিয়েছিলাম ঠিকই কিন্তু কি কারণে চুড়ান্ত তালিকায় নাম আসেনি তা জানার বাইরে তবে সন্ধায় তাদের দেওয়া ৪হাজার টাকা ফেরত দিযেছি। এ বিষয় ওয়ার্ড মেম্বার আঃ সাত্তার এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন এটা সম্পুর্ণ ভুয়া মিথ্যা বানোয়াট নির্বাচনের আগে আমাকে হেয়ও করার জন্য কিছু মানুষ আমার নামে মিথ্যা রটাচ্ছে।

শাহরিয়ার কবির / দৈনিক সংবাদপত্র 

0 Shares

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here