পাঁচবিবিতে ৬৮ টি পূজা মন্ডপে অনুষ্ঠিত হচ্ছে দুর্গা পূজা

0
140
0 Shares

পাঁচবিবি প্রতিনিধিঃ আর কয়েক দিন পরেই শুরু হচ্ছে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। এ উৎসবকে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যে জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার পূজা মন্ডব গুলোতে শুরু হয়েছে প্রতিমা তৈরী কাজ। তাই পূজার আয়োজনের মধ্যে প্রধান উপকরণ ও মন্দিরের অন্যতম আকর্ষণ দেবী দুর্গার প্রতিমা তৈরীতে এখন মহাব্যস্ত মৃৎ শিল্পীরা।

করোনা প্রাদুর্ভাবের কারণে কেন্দ্রীয় পুজা উদযাপন পরিষদের ২৬দফা শর্ত মেনে এবার জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলায় পৌর সদর সহ উপজেলার ৮ টি ইউনিয়নে মোট ৬৮ টি পুজা মন্ডপে শারদীয় দুর্গা পূজা অনুষ্ঠিত হবে। একারণে অন্যান্য বছরের তুলনায় এবার পূজায় আনন্দ একটু কম বলে ভক্ত অনুসারী জানিয়েছেন।
বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ পাঁচবিবি উপজেলা শাখা সূত্রে জানা যায়,

এবার পাঁচবিবি পৌর শহরে ১৫ টি, বাগজানা ইউনিয়নে ৭টি, ধরঞ্জী ইউনিয়নে ১২ টি, আয়মা ইউনিয়নে ৭ টি, বালীঘাটা ইউনিয়নে ৮ টি, আটাপুর ইউনিয়নে ৯ টি, মোহম্মদপুর ইউনিয়নে ১ টি,কুসুম্বা ইউনিয়নে ৮ টি,এবং আওলাই ইউনিয়নে ২ টিসহ মোট ৬৮টি পূজা মন্ডপে পূজা উদযাপনের প্রস্তুতি চলছে। পঞ্জিকা মতে, ২২ই অক্টোবর বৃহস্পতিবার ষষ্ঠী পূজার মধ্য দিয়ে দেবীর নবপত্র কল্পারম্ভ,

ওইদিন মন্ডপে মন্ডপে বেঁজে উঠবে ঢাক-ঢোল আর কাঁসরের বাজনার শব্দ। ২৩ই অক্টোবর শুক্রবার সপ্তমী পূজা, ২৪ই অক্টোবর শনিবার মহাঅষ্টমী পূজা, ২৫ই অক্টোবর রোববার মহানবমী পূজা ও ২৬ই অক্টোবর সোমবার দশমী বিহিত পূজা ও দশহরার মধ্য দিয়ে পাঁচ দিন ব্যাপি শারদীয় দুর্গাপূজার সমাপ্তি ঘটবে। ফলে প্রতিমার কারিগড়রা হাতে সময় বেশি পাওয়ায় ধিরস্থির ভাবে কাজ করছে।  

প্রতিমা তৈরীর কারিগড় জয়পুরহাট জেলার কালাই উপজেলার কুশুমসারা গ্রামের তপন কুমার জানান, গত বছরের চাইতে এবার মহামারি করোনা ভাইরাসের কারনে প্রতিমা তৈরীর কাজ হাতে কম এসেছে। এবার মোট ৭ টি প্রতিমা তৈরী কাজ হাতে নিয়েছি। তিনি আরো জানান প্রতিমা তৈরীতে ২০-৬০ হাজার টাকার নিয়ে কাজ করছেন। দেশে মহামারী করোনার কারনে শারদীয় দুর্গা পূজা অনুষ্ঠিত হওয়ায়

সরকার ইতি মধ্যেই দুর্গা প্রতিমা বিসর্জনের দিন শোভা যাত্রার উপর বিধি নিষেধ আরোপ করেছেন। পাঁচবিবি উপজেলার পৌর এলাকা সহ ৮ টি ইউনিয়নের ৬৮ টি পূজা মন্ডপের মধ্যে অধিক ঝুকি পুর্ণ কয়টি জানতে চাইলে বাংলাদেশ পূজা উদ্যাপন পরিষদ পাঁচবিবি উপজেলা শাখার সভাপতি বাবু সুনীল রায় জানান, এখন পর্যন্ত ঝুঁকিপুর্ন পূজামন্ডপ চিহ্নিত করা হয়নি।

মোঃ বাবুল হোসেন / দৈনিক সংবাদপত্র 

0 Shares

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here