দাদনের টাকা দিতে না পারায় কান কেটে দেওয়ার অভিযোগ

0
31

বগুড়া প্রতিনিধিঃ বগুড়ার শাজাহানপুরে দাদনের টাকা দিতে না পারায় এনামুল হক (৪০) নামে এক ব্যক্তির কান কেটে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে দাদন ব্যবসায়ী মজনু মিয়ার বিরুদ্ধে। এনামুল হক রামচন্দ্রপুর উত্তর পাড়ার বাসিন্দা। এ ঘটনায় মঙ্গলবার দিবাগত রাতে নাজমা বেগম বাদী হয়ে পাঁচজনকে আসামি করে থানায় অভিযোগ করিয়াছে। জানা যায়, উপজেলার মাদলা ইউনিয়নের রামচন্দ্রপুর উত্তরপাড়ার এনামুল হকের স্ত্রী নাজমা বেগম। স্বামীর এনামুল হক পেশায় সিএনজিচালক।

অন্যের সিএনজি ভাড়ায় চালিয়ে তাদের সংসার চলে। তিন মাস আগে অসুস্থ্য হলে চিকিৎসার খরচ যোগাতে না পেরে প্রতিবেশী কোরবান আলীর ছেলে দাদন ব্যবসায়ী মজনু মিয়ার (৪৫) কাছ নিজের স্বর্ণের কানের দুল বন্ধক রেখে প্রতি সপ্তাহে দুই হাজার টাকা দাদন দেয়ার শর্তে ২০ হাজার টাকা নিয়েছিল। তবে গত তিন সপ্তাহ দাদনের টাকা দিতে না পারায় দাদন ব্যবসায়ী মজনু মিয়া দলবল নিয়ে গত মঙ্গলবার দুপুর ১২টায় তার ক্যাডার বাহিনীসহ স্বামী এনামুল হকের বাড়ীতে গিয়ে তাকে বেদম মারপিট করে।

একপর্যায়ে তার কান কান কেটে দেয়। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শাজাহানপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল্লাহ আল মামুন এ প্রতিবেদক-কে বলেন, লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপের্ক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

জিএম মিজান

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here