ডিবি পুলিশ পরিচয়ে টাকা হাতিয়ে নেয়ায় এএসআই গ্রেফতার

0
238
ফাইল ছবি

বগুড়া প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরে ডিবি পুলিশ পরিচয় দিয়ে এক ব্যক্তিকে আটকের পর টাকা আদায় করে ছেড়ে দেয়ার ঘটনায় সোমবার রাতে বগুড়া থেকে বগুড়া এবিবিএনএ কর্মরত শাহাদৎ হোসেন নামে পুলিশের এক এএসআই কে বগুড়া থেকে গ্রেফতার হয়েছে। দিনাজপুরের হাকিমপুর থানা পুলিশের একটি টিম তাকে বগুড়া সদর থানা চত্বর থেকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারের সময় দিনাজপুর পুলিশের টিম সদর থানা পুলিশ সদস্যদের নিয়ে অপ্রীতিকর পরিস্থিতির মুখে পড়েন।

দিনাজপুর ও বগুড়া পুলিশ সুত্র জানা যায়, বগুড়া আর্মড পুলিশ ব্যাটলিয়নে (এপিবিএন) দিনাজপুরের হাকিমপুর এলাকার চকচকা গ্রাম এলাকায় পহেলা মার্চে অভিযানে যান বগুড়া এপিবিএন এর একটি টিম। সেখান থেকে কয়েকজনকে আটক করা হয়। তারামনি নামে এক মহিলা অভিযোগ করেন, সাদা পোশাকে থাকা ডিবি পুলিশ পরিচয় দিয়ে তার স্বামী আরমানকে আটক করার পর ছেড়ে দেয়ার জন্য ২০ হাজার টাকা দাবি করা হয়। বিকাশের মাধ্যমে ১০ হাজার টাকা দিলে তার স্বামীকে ছেড়ে দেয়া হয়। এ ঘটনায় তারামনি বাদি হাকিমপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করলে দিনাজপুর পুলিশ তদন্ত শুরু করে।

যে বিকাশ নম্বরের মাধ্যমে টাকা তোলা হয় তা বগুড়ার বলে দিনাজপুর পুলিশ জানতে পারে। সে সুত্র ধরে হাকিমপুর-ঘোড়াঘাট সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আখিউল ইসলামের নেতৃত্বে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সহ ৬ সদস্যের একটি টিম সোমবার রাত ৮টায় বগুড়ায় আসেন। তারা বগুড়া সদর থানা সংলগ্ন বিকাশের একটি এজেন্টের ওই নম্বর সনাক্ত করেন। তারা সেখান থেকে জানতে পারেন এপিবিএন’র এএসআই শাহদৎ ওই টাকা নিয়েছেন বলে মামলার তদন্তারী টিমকে জানায়। এএসআই শাহদৎ বগুড়া সদর থানায় দীর্ঘ দিন দায়িত্ব পালনের পর এপিবিএনে বদলী হন বলে সুত্র জানায়।

পরে দিনাজপুরের পুলিশ টিমটি বগুড়া সদর থানায় আসেন। তারা বগুড়া সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সনাতন চক্রবর্তীর অফিসে যান। এসময় এপিবিএনও কর্মরত এএসআই শাহদৎকে সেখানে ডেকে আনা হয়। জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে আকস্মিক ভাবে এএসআই শাহাদৎ দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করেন। এসময় দিনাজপুরের টিম তাকে ধাওয়া করে ধরে ফেললে সদর থানা পুলিশের কয়েকজন তার পক্ষে নিয়ে ছাড়ানোর চেষ্টা করে। এতে ধস্তাধধস্তি শুরু হয় এবং হট্রগোল বেধে যায়। এসময় দিনাজপুর থেকে আসা পুলিশের কয়েক সদস্য হেনস্তার শিকার হন বলেও জানা যায়।

তবে এএসআই শাহাদৎ এর পক্ষে এগিয়ে যাওয়া বগুড়া সদর থানার কয়েক পুলিশ সদস্য দিনাজপুর থানা পুলিশের বিষয়টি জানতে পারলে পরিস্থিতি শান্ত হয়। এর পর দিনাজপুর থেকে আসা পুলিশের টিম এএসআই শাহাদৎকে গ্রেফতার করে রাতেই দিনাজপুরে নিয়ে যায়। বগুড়া সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সনাতন চক্রবর্তী এ প্রতিবেদক-কে বলেন, দিনাজপুর পুলিশের একটি টিম এসে গ্রেফতার করলেও কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। তবে অভিযুক্ত এএসআই দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করলে হট্টগোল হয়েছে। অপর দিকে বগুড়া আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়নের একাধিক কর্মকর্তার সঙ্গে যোগাযোগ করেও অভিযুক্ত এএসআই’র বিষয়ে কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

জিএম মিজান / দৈনিক সংবাদপত্র 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here