ডাক্তার ও জনবলের অভাবে পাইকগাছায় ২ কোটি টাকা ব্যায়ে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কেন্দ্রটি বন্ধ

0
23
0 Shares

পাইকগাছা প্রতিনিধিঃ পাইকগাছার লতা ইউনিয়নে প্রায় ২ কোটি টাকা ব্যায়ে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কেন্দ্রটি আধুনিকায়ন করলেও ডাক্তার ও জনবল অভাবে দু-বছর ধরে তালাবদ্ধ রয়েছে। ফলে চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে ইউনিয়নের ৩০ হাজার মানুষ। অচিরেই এ ইউনিয়ানের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কেন্দ্রে ডাক্তার নিয়োগের জন্য এলাকা বাসি সংশ্লিষ্ঠ কতৃপক্ষের নিকট দাবি জানিয়েছেন। সুত্রমতে উপজেলার লতা ইউনিয়নের কাঁঠামারি নামক স্থানে ১৯৯০ সালে লতা ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কেন্দ্র প্রতিষ্ঠিত হয়।

উপজেলা সদর থেকে প্রায় ২০ কিঃ মিটার দুরত্বে এলাকাটি অবস্থিত। সাধারন মানুষের দৌড়গড়ায় স্বাস্থ সেবা পৌছে দেয়ার জন্য সরকার এ উদ্দ্যোগ গ্রহন করে। প্রথমত মানুষের সেবা দানের জন্য ইউনিয়ন পরিষদে এর দাপ্তরিক কর্যক্রম শুরু হয়। সে সময় থেকে ঢিলে তালে এর কার্যক্রম চলে বলে স্থানীয় ইউপি সদস্য কৃষ্ণপদ রায়সহ স্থানীয়রা জানায়। ২০১৮সালে প্রায় দুই কোটি টাকা ব্যায়ে দৃষ্টি নান্দনিক দো-তলা বিশিষ্ট একটা ভবন নির্মিত হয়েছে। যার নীচে ৫টি কক্ষ ও দো-তলায় ডাক্তারদের আবাসিক। যার চারপাশে সুউচ্চ প্রাচীর।

এ স্বাস্থ্য কল্যান কেন্দ্রে সেবাদানের জন্য একজন ডাক্তার, একজন পরিবার কল্যান প্রদর্শিকা, একজন নিরাপত্তা প্রহরি ও একজন আয়া থাকার কথা। এলাকা বাসি জানিয়েছে এক জন নিরাপত্তা প্রহরি সপ্তাহে একবার এসে ঝাড়ু দিয়ে চলে যায়। সেবা দানের জন্য সেখানে কোন উপকরণ আছে কিনা তা জানার চেষ্টা করা হলেও কেউ বলতে পারেনি। এব্যাপারে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান চিত্ত রঞ্জন মন্ডল বলেন, সরকার স্বাস্থ্য সেবা জনগনের দৌড়গড়ায় পৌছানোর আধুনিক ভবনসহ অনেক কিছু করছে।

কিন্তু আমার ইউনিয়নবাসী এখানকার সেবা থেকে বঞ্চিত। উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা এসএম কবির হোসেন বলেন, এ বিষয়ে আমারা কতৃপক্ষকে বার বার লিখেছি ডাক্তার নিয়োগ দিলেও উপর মহলকে ম্যানেজ করে অন্যত্রে বদলি হয়ে যায়। ইউনিয়ন বাসি স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কেন্দ্রে ডাক্তার নিয়োগের জন্য সংশ্লিষ্ঠ কতৃপক্ষের হস্থক্ষেপ কামনা করেছেন।

ইমদাদুল হক / দৈনিক সংবাদপত্র 

0 Shares

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here