ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে মসজিদের জমি-জমাকে কেন্দ্র করে আহত-৬

0
39
ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে মসজিদের জমা-জমিকে কেন্দ্র করে আহত-৬
ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে মসজিদের জমা-জমিকে কেন্দ্র করে আহত-৬
2 Shares

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ ঠাকুরগাঁও জেলা পীরগঞ্জ উপজেলায় ৭নং হাজীপুর ইউনিয়নে নং-৫ ওয়ার্ড, কৃষ্টপুর গ্রামে জামে মসজিদের সম্পত্তিকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ৬। ৭ই আগষ্ট রোজ শুক্রবার সকাল অনুমান ৮ ঘটিকার সময় এই ঘটনাটি ঘটে । সরজমিনে গিয়ে জানা যায়, ৭নং হাজীপুর ৫নং ওয়ার্ডের ১৯৭৬ সালে মোহাম্মদপুর উত্তর পাড়া জামে মসজিদ নির্মাণ হয়।


দীর্ঘদিন অত্র এলাকার মুসল্লিরা এই মসজিদে নামাজ আদায় করে আসছেন। মসজিদের জমি-জমাকে কেন্দ্র করে আহত হয়েছেন ৬ জন। আহত ব্যক্তিরা হলেন কৃষ্টপুর গ্রামের সোহরাব আলীর স্ত্রী বেলী আক্তার (৩২) মশিউর রহমানের স্ত্রী বিলকিস (৪০) মশিউরের ছেলে মোঃ রফিক (১৭) দহির উদ্দীনের ছেলে সহরাব (৪২) সহরাবের ছেলে সহিদুর (১৭) সলেমান আলীর ছেলে শেখ ফরিদ (৪৫)। 


আহতের দ্রুত পীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করান। এদের মধ্যে ৬ জন প্রাথমিক চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছে। একজনের অবস্থা আশংকা জনক দেখা দিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক রফিকের উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে দিনাজপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রের্ফাড করেন। ঘটনার সুত্রপাত ধরে জানা যায়, গত রমজানে অর্থ বন্টন করাকে কেন্দ্র করে উক্ত কৃষি জমির ধান ক্ষেতে গাছ রোপন করেন বর্তমান দায়িত্বরত সভাপতি/সম্পাদক সহ স্থানীয়রা ঐ জমিতে গাছ রোপন করেছেন।


এরপর উভয় পক্ষে লাঠিসোটা নিয়ে সংঘর্ষ সৃষ্টি হয়। অতপর উভয়ে পক্ষের সাথে কথা বললে জানা যায়, এই মসজিদের বিভিন্ন দাগে প্রায় ৬৩ শতক জমি রয়েছে। ঐ জমিকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ সুত্রপাত ঘটে। উল্লেখ্য যে, একই এলাকায় একটি পুরাতন মসজিদ আছে ও আরেকটি নতুন মসজিদ নির্মাণ কাজ চলছে, এই নতুন মসজিদের ৬ জন বৃদ্ধ, যুবক, শিশু কেউ বাদ যায়নি এই সংঘর্ষে আহত হতে।


এলাকায় এখন আতংক বিরাজ করছে। নতুন মসজিদের সভাপতি প্রভাষক লতিফুর রহমান জানান, কয়েকজন মারপিট করেছে এবং ঘরে আগুন লাগিয়েছে, পরে ফায়ার সার্ভিস এসে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। তবে এর আগে এই বিষয় নিয়ে উভয় পক্ষের মুসল্লিরা পীরগঞ্জ থানায় আপোষ মিমাংশার জন্য বসা হয় তাতে লাভ হয়নি। তবে আমরা উভয় পক্ষের এ্যাডভোকেট সাথে পরামর্শ করার সিদ্ধান্ত নিয়ে ছিলাম। এরই মধ্যে জামাল, মিজান সহ আরও অনেকেই মসজিদের উক্ত জমির ধানে ক্ষেতে গাছ রোপন করেন।


তাই মারামারি হয়েছে। বিষয়ে ৭নং হাজীপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সিদ্দিকুর রহমান জানান যা ঘটেছে দুঃখ জনক, এটা মানুষের কাম্য নয়। চেয়ারম্যান আরও বলেন এই বিষয়ে আমাকে মুঠোফোনে ঘটনাটি জানি য়েছেন। এ বিষয়ে পীরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ প্রদীপ কুমার রায় মুঠোফোনে জানান, কারো অভিযোগ পাইনি তবে শুনেছি উভয় পক্ষ হাসপাতালে ভর্তি আছে সুস্থ্য হউক, অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নিব।


মুনসুর আহম্মেদ / দৈনিক সংবাদপত্র 

2 Shares

পোস্ট টি সম্পর্কে আপনার মতামত জানানঃ