ঝন্টুর ছবিতে নায়ক হিসাবে কাকে পাচ্ছেন দীঘি?

0
48
0 Shares

একটি মোবাইল অপারেটরের বিজ্ঞাপনে মডেল হয়ে সাড়া ফেলেছিল শিশুশিল্পী প্রার্থনা ফারদিন দীঘি। এর পরই ডাক পায় চলচ্চিত্রে। মা দোয়েল ও বাবা সুব্রত—দুজনই চলচ্চিত্রের মানুষ। তাঁদের দেখানো পথেই নেমে পড়ে ছোট্ট দীঘি। ‘চাচ্চু’, ‘দাদী মা’, ‘পাঁচ টাকার প্রেম’সহ একের পর এক হিট ছবি উপহার দিতে শুরু করে সে। একটা সময় তাকে ঘিরেই তৈরি হতো চলচ্চিত্রের গল্প। মাঝখানে অনেক দিন চলচ্চিত্র থেকে দূরে ছিল দীঘি। পড়াশোনা নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করেছে। যদিও সেই সময়টা তাকে ঘিরে সংবাদমাধ্যম, এমনকি চলচ্চিত্র-সংশ্লিষ্টরাও ছিল সরব। বারবার শোনা গেছে, শিশুশিল্পী থেকে নায়িকা হয়ে ফিরছেন দীঘি।
এমনও শোনা গেছে, শাকিব খানের সঙ্গে জুটি বাঁধতে যাচ্ছেন তিনি। যদিও পরে খবরগুলো গুঞ্জন হিসেবেই রয়ে গেছে। অনেক পরিচালক-প্রযোজক দীঘিকে কাস্টিং করতে চেয়েও পারেননি। শেষ পর্যন্ত সফল হয়েছে শাপলা মিডিয়া। প্রতিষ্ঠানটির কর্ণধার সেলিম খান দীঘিকে দুটি ছবিতে নায়িকা চরিত্রে চুক্তিবদ্ধ করেছেন। এর মধ্যে ‘টুঙ্গিপাড়ার মিয়া ভাই’ নামের একটি ছবির শুটিং প্রায় শেষ।

এরই মধ্যে ‘তুমি আছো তুমি নেই’ নামে নতুন একটি ছবির ঘোষণা করেছিলেন গুণী নির্মাতা দেলোয়ার জাহান ঝন্টু। শুরুতে তিনি তার ছবির জন্য চুড়ান্ত করেন বাপ্পী চৌধুরী ও দীঘিকে। প্রথম গান রেকর্ডিংয়ের দিন স্টুডিওতে দুজনকে সাংবাদিকদের সঙ্গে পরিচয়ও করিয়ে দেন। অথচ এক দিন পার না হতেই বাপ্পি ছবি থেকে সরে দাড়ান। আর তাতেই সায়মন সাদিককে দীঘির বিপরীতে চুক্তিবদ্ধ করে নেন পরিচালক। তারপর তিনি শেষ করেন তার ছবির বাকি চারটি গানের রেকর্ডিং।

এরপর তিনি সিদ্ধান্ত নেন আগামী সপ্তাহ থেকে শুটিং শুরু করার। কিন্তু ১ নভেম্বর হঠাৎ ঝন্টুর ছেলের ফোনে কল করে চিত্রনাট্য পরিবর্তন করার অনুরোধ করেন সায়মন। ছবির দ্বিতীয় নায়িকার সঙ্গে গান করার অনিচ্ছাও প্রকাশ করেন। বিষয়টি ঝন্টুর কানে গেলে তিনি অনেকটা কষ্ট পান।

পরিচালক ঝন্টু বলেন, সায়মনকে যখন গল্প শুনিয়েছি, তখন সে সব কিছু জেনে-বুঝেই রাজি হয়েছিল। এখন রাতারাতি বললে তো আমি গল্প পরিবর্তন করব না। দরকার পড়লে নায়ক পরিবর্তন করব। তবে এর মধ্যে ছবির যে আর্থিক ক্ষতি হয়েছে, সেটা সায়মনকেই বহন করতে হবে।

ঝন্টু আরো বলেন, ২ নভেম্বর প্রযোজক সমিতিতে সায়মনের বিরুদ্ধে তিনি অভিযোগ করেছেন। শিল্পী সমিতি ও পরিচালক সমিতিতেও জানাবেন অভিযোগ।

আরো বলেন, বিচার হওয়ার আশায় তো আর বসে থাকতে পারব না! ছবির শুটিং শুরু করতে হবে। দেখি দীঘির বিপরীতে নতুন কাউকে নেওয়া যায় কি না! হয়তো শান্ত খানও হতে পারে। কারণ দীঘি আর শান্ত এর মধ্যে চার-পাঁচটি ছবিতে অভিনয় করছে।

0 Shares

পোস্ট টি সম্পর্কে আপনার মতামত জানানঃ