জামালপুরে বন্যার পানিতে ঝিনাই নদীর ব্রীজ ভেঙ্গে ২৫টি গ্রামের সাথে যোগাযোগ বন্ধ

0
96
জামালপুরে বন্যার পানিতে ঝিনাই নদীর ব্রীজ ভেঙ্গে ২৫টি গ্রামের সাথে যোগাযোগ বন্ধ
জামালপুরে বন্যার পানিতে ঝিনাই নদীর ব্রীজ ভেঙ্গে ২৫টি গ্রামের সাথে যোগাযোগ বন্ধ
3 Shares

জামালপুর প্রতিনিধিঃ জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে ঝিনাই নদীর ওপর নির্মাণাধী ২০০ মিটার ব্রীজের একটি পিলার ও দুইটি গার্ডার বন্যার পানির তোড়ে ভেঙ্গে গেছে। ব্রীজটি ভেঙ্গে যাওয়ায় ২৫ টি গ্রামের মানুষের পড়েছে চরম বিপাকে। স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, ২০০৬ সালে শুয়াকৈর-হদুর মোড় সংলগ্ন ঝিনাই নদীর ওপর ২০০ মিটার দৈর্ঘ্যের এ ব্রীজটি তৈরি করা হয়। হঠাৎ করে মঙ্গলবার সকালে বন্যার পানির তোড়ে ওই ব্রীজের মাঝামাঝি ২০ মিটার দৈর্ঘ্যের ২টি গার্ডার সহ ১টি পিলার প্রায় ১ ফুট ডেবে যায়।

জামালপুরে বন্যার পানিতে ঝিনাই নদীর ব্রীজ ভেঙ্গে ২৫টি গ্রামের সাথে যোগাযোগ বন্ধ
জামালপুরে বন্যার পানিতে ঝিনাই নদীর ব্রীজ ভেঙ্গে ২৫টি গ্রামের সাথে যোগাযোগ বন্ধ

বুুধবার ২২ই জুলাই দুপুরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শিহাব উদ্দিন আহম্মেদ, এলজিইডির প্রকৌশলী রাকিব হাসান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এ সময় ব্রীজটি ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ার কারনে পারাপার নিষিদ্ধ ঘোষনা করে উপজেলা প্রশাসন। এদিকে মঙ্গলবার রাতে পিলারসহ ২টি গার্ডার মুল ব্রীজ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। ব্রীজটি ভাঙ্গার ফলে সরিষাবাড়ী ও মাদারগঞ্জ উপজেলার চরাঞ্চলের প্রায় ২৫টি গ্রামের মানুষের চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে।
স্থানী লোকজন জানান, শুয়াকৈর গ্রামের মোঃ শামসুল আলম, হাসান আলী ও সোনা কান্দর গ্রামের আমেন

আলী বাবুল মিয়া বলেন, সরিষাবাড়ী উপজেলা সাথে আমাদের অন্য কোন বিকল্প সড়ক না থাকায় চরম ভোগান্তির পোহাতে হচ্ছে । কোন মানুষ অসুস্থ্য হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য শহরের হাসপাতালে নিতে পারবো না । তাই সরকাররের কাছে আমাদের দাবী দ্রুত ব্রীজটি মেরামত করে পারাপারের উপযোগী করা হউক। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিহাব উদ্দিন আহমদ জানান, ব্রীজটির একাংশ আগাতেই দেবে ছিল তাই নিরাপত্তার কারনে মঙ্গলবার দুপুরেই সব ধরনের পারাপার বন্ধ করে দেওয়া হয়ে।

এব্যাপারে এলজিইডির সিনিয়র সহকারী প্রকৌশলী মোঃ সায়েদুজ্জামান সাদেক জানান, ব্রীজটি আগের করায় নির্মাণের সময় নকশাতে অনুযায়ী পায়েল করা হয় তাতে নিচের দিতে গভিরতা হয় হয়েছে । যে কারনে বন্যার পানির তীব্র তোড়ে সেটির ধস নামে। এছাড়া ও এবারের বন্যায় ১৭ শত কিলোমিটার পাকা সড়ক পানিতে তলিয়ে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। বন্যার পানি নেমে যাওয়ার সাথে সাথে নতুন করে মেরামতের কাজ শুরু করা হবে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডেও নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ আবু সাঈদ জানান , জামালপুরের তৃতীয় বারের মত বন্যার পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকতে পারে সপ্তাহ জুড়ে। পানি উন্নয়ন বোর্ডেও আওয়াতায় সরিষাবাড়ী থেকে ভুয়াপুরে ১২ কিলোমিটার সড়ক বাধেঁ কিছু সমস্যা দেখা দিলে সাথে সাথে মেরামত করে ফেলি।
 
নিজস্ব প্রতিবেদক / দৈনিক সংবাদপত্র 

3 Shares

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here