জামালপুরে ছোট ছেলেকে নিয়ে বড় ছেলেকে খুন করেন পিতা-প্রেস বিফিংএ পুলিশ সুপার

0
74
জামালপুরে ছোট ছেলেকে নিয়ে বড় ছেলেকে খুন করেন পিতা-প্রেস বিফিংএ পুলিশ সুপার
জামালপুরে ছোট ছেলেকে নিয়ে বড় ছেলেকে খুন করেন পিতা-প্রেস বিফিংএ পুলিশ সুপার
4 Shares

ব্যুরো প্রধান জামালপুরঃ জামালপুরে ঈদুল আজহার পরের দিন অজ্ঞাত একটি লাশ উদ্ধারের ঘটনায় তদন্ত সাপেক্ষে রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ। ছোট ছেলে ও আরোও দুইজনকে সঙ্গে নিয়ে মাদক সেবী বড় ছেলে কে খুন করেন পিতা। এ ঘটনায় তিন জনকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। নিহতে পরিচয় আল আমিন শেরপুর জেলার শ্রীবর্দী উপজেলার কাজীগলি গ্রামের মোঃ আমিরুল ইসলামের বড় ছেলে।


বৃহস্পতিবার ১৩ই আগস্ট দুপুরে জামালপুর পুলিশ সুপার কার্যালয়ে মিলনায়তনে আয়োজিত এক প্রেস ব্রিফিং-এ পুলিশ সুপার মোঃ দেলোয়ার হোসেন জানান, গত ২রা আগস্ট ঈদুল আজহার পরের দিন সদর উপজেলার দিগপাইত ইউনিয়নের পূর্বপাড়দিঘুলী এলাকায় একটি কালভার্টের পাশে ভাসমান অবস্থায় একটি লাশ দেখতে পায় স্থানীয়রা। পরে খবর পেয়ে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে।


পরে লাশটির ফিঙ্গার প্রিন্টের মাধ্যমে পরিচয় সনাক্ত হলে নিহতের পিতা পরের দিন (৩ আগস্ট) জামালপুর জেনারেল হাসপাতালের মর্গে এসে তার বড় ছেলে বলে নিশ্চিত করেন। এরপর নিহতের পিতা গত ৫ই আগস্ট  বাদী হয়ে জামালপুর সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। হত্যার কারণ অনুসন্ধানের এক পর্যায়ে পুলিশ জানতে পারে নিহত আল আমিন মাদকাসক্ত ছিল।


গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গত ১০ আগস্ট নিহতের ছোট ভাই আরিফুল ইসলামকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নারায়ন গঞ্জ জেলার ফতুল্লা এলাকা হতে গ্রেফতার করে পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদে সে জানায় মাদকাসক্ত হওয়ায় বড় ভাই কে খুন করার পরিকল্পনা করা হয়। পরিকল্পনা অনুযায়ী ১লা আগস্ট আগে থেকেই তার পিতা মোঃ আমিরুল ইসলাম, নানা মোঃ আক্তারুজ্জামান দুদু (৪৮) ও রুবেল মিয়া (২০) জামালপুর সদরের ছোনটিয়া এলাকায় অবস্থান নেয়।


পরে বাবাকে বাড়ি নিয়ে আসার কথা বলে ছোট ভাই আরিফুল ইসলাম বড় ভাই আল আমিনকে মোটরসাইকেলে করে সাথে নিয়ে ঘটনাস্থলে আসে। সেখানে আগে থেকেই অবস্থান নেয়া নিহতের পিতা ও অপর দুইজন আল আমিনের হাত-পা বেধে গলায় গামছা পেচিয়ে হত্যা করে ধান ক্ষেতে ফেলে রেখে যায়। আরিফুল ইসলামের কাছ থেকে হত্যার স্বীকারোক্তি পাওয়ার পর হত্যাকান্ডে জড়িত জামালপুর সদর উপজেলার নারায়নপুর গ্রামের


মৃত আবুল হোসেনের ছেলে মোঃ আক্তারুজ্জামান দুদু ও কাষ্টসিংগা গ্রামের মফিজ উদ্দিনের ছেলে রুবেল মিয়াকে (১১ আগস্ট) তাদের নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত তিনজনেরই ঘটনার একই রকম বর্ণনায় জানা যায় নিহতের পিতা এই হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত। পুলিশ সুপার আরো জানান, আদালতে সোপর্দের পর ওই তিনজনকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। নিহতের পিতাকেও গ্রেফতারে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে।


নিজস্ব প্রতিবেদক / দৈনিক সংবাদপত্র 

4 Shares

পোস্ট টি সম্পর্কে আপনার মতামত জানানঃ