জামালপুরের মেলান্দহে পুত্রের ছুরির আঘাতে পিতার মৃত্যু, আহত-মা

0
33
0 Shares

ব্যুরো প্রধান জামালপুরঃ জামালপুরের মেলান্দহে পুত্রের ছুরির আঘাতে ওয়াহাব আলী (৫৫) নামের একজন মারা গেলেন। শুক্রবার (২রা এপ্রিল) ওয়াহাব আলী পুত্রের ছুরিকাঘাতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেলেন। মৃত দেহ ময়মনসিংহ মেডিকেল হাসপাতাল থেকে আনার ব্যবস্থা চলছে। এ ঘটনার পর থেকেই ওয়াহাব আলীর বড় মেয়ে রিনা পারভীন ছাড়া বাকি স্বজনরা গা-ঢাকা দিয়েছে। একই ঘটনায় মা নইলে বেগম (৪৫) আহত। জানা গেছে মেলান্দহ উপজেলার চরবানিপাকুরিয়া ইউনিয়নের আটাবাড়ি গ্রামে।

৩১ই মার্চ ওয়াহাব আলীর প্রথম স্ত্রী নইলে বেগম (৫০) ও ছেলে রিপন (২৬)র সাথে সামান্য বিষয়ে কলহ হয়। সে সময় তর্ক বিতর্কের এক পর্যায়ে ছেলে রিপন তার মা নইলে বেগমকে হাতের কব্জি ভেঙ্গে দেয়। খবর পেয়ে ওয়াহব আলীর পরদিন ঢাকা থেকে দ্বিতীয় স্ত্রী গোলাপীকে (৪৫) কে রেখে গ্রামের বাড়িতে আসেন। ঘটনা জান তে চাইলে দ্বিতীয় দফা তর্কবিতর্ক লেগে গেলে, ভাতিজা ফিরল মিয়া বাবলু (৫০) ও জামতা শহিদুল ইসলাম (৩৫) ক্ষিপ্ত হয়ে ওয়াহাব আলীর মাথায় আঘাত করে।

এ সময় পুত্র রিপন (২৬) বাবা ওয়াহাব আলীর পেটে ছুরা মেরে রক্তাক্ত করে আহত অবস্থায় ফেলে রাখে। পরে প্রতিবেশিরা মুমূর্ষু ওয়াহাব আলীকে প্রথমে জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মন সিংহ মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করলে দুই দিন মৃত্যুর সাথে যুদ্ধে করে দুপুরে চিকিৎসাথীন অবস্থায় মারা যান। এদিকে ওয়াহাব আলীর দ্বিতীয় স্ত্রী গোলাপী বেগম (৪৫) জানান- ওয়াহাবকে পরিকল্পিত ভাবে বাড়ি তে ডেকে এনে হত্যা করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে মেলান্দহ থানার অফিসার ইনচার্জ মায়নুল ইসলাম জানান- হত্যার বিষয়ে এখনো কেও থানায় অভিযোগ করেনি।

তানভীর আহমেদ হীরা / দৈনিক সংবাদপত্র 

0 Shares

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here