জরুরী খাদ্য সহায়তার জন্য ৩৩৩ নাম্বারে ফোন দিতে বলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা

0
33

হাটহাজারী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধিঃ চলমান কঠোর বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে নানান অজুহাত দেখি ঘর থেকে বের হওয়া সাধারণ মানুষ জরিমানা দিতে রাজি কিন্তু লকডাউন মানতে রাজি নই। কেউ আবার সামিল হচ্ছে জীবন ও জীবিকার তাগিদে মাথারঘাম পায়ে ফেলে দুমুঠো খাবার জোগাড় করতে বের হওয়া মানুষের সাথে। বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাস কোভিড ১৯ সংক্রমণ ঠেকাতে সরকার কর্তৃক আরোপিত ১৪ দিনের কঠোর বিধি নিষেধ বাস্তবায়ন ও জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে লকডাউনের সপ্তম দিনে চট্টগ্রামের হাটহাজারীতেও উপজেলা প্রশাসনের ব্যাপক তৎপরতা।

আগামী দিন গুলোতে সরকারি নির্দেশনা বাস্তবায়নে উপজেলা প্রশাসন আরও কঠোর হবে বলে জানিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ শহিদুল আলম। বৃহস্পতিবার (২৯ শে জুলাই) উপ জেলার বিভিন্ন এলাকায় শহিদুল আলমের নেতৃত্বে অভিযান পরিচালনা করে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য মাইকিং ও প্রচার প্রচারণা চালায় ভ্রাম্যমান আদালত। এছাড়া সড়কে যান চলাচলে সরকারের নির্দেশনা মানতে উদ্বুদ্ধ করেন। এসময় সরকারি নির্দেশনা অমান্য করার অপরাধে পাঁচটি মামলায় ১৪০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

অভিযানকালে ইউএনও হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, লকডাউনের সামনের দিনগুলোতে উপজেলা প্রশাসন আরো কঠোর হবেন। তিনি আরো বলেন, জরুরী প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে কেউ বাইরে বের হতে পারবেনা। বিকেল ৩টার পর কাচাবাজার ও নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের দোকান বন্ধ করতে হবে, ক্রেতাগণ এই সময়ের মধ্যেই ক্রয় কাজ সম্পন্ন করবে এবং হোটেল, রেস্টুরেন্ট ও খাবারের দোকান (শুধু পার্সেল) রাত ৮ টার পর খোলা রাখা যাবেনা। এ সময় জরুরী খাদ্য সহায়তার জন্য ৩৩৩ নাম্বারে ফোন দিতেও বলেন নবাগত নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ শহিদুল আলম। তিনি সবাইকে লকডাউন নির্দেশনা মেনে চলার অনুরোধ জানান।

মো. সাহাবুদ্দীন সাইফ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here