কুষ্টিয়ার কুমারখালী আ’লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষ আটক -১৪ জন

0
91

খুলনা প্রতিনিধিঃ কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলা চাঁদপুর ইউনিয়নের ধলনগর গ্রামে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আওয়ামীলীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে ৬০ জনকে আসামী করে দুইটি বিস্ফোরক ও অস্ত্র আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা নং ১ ও ২, তাং ০২/০৯/২০২০। ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা হয়েছে ১০ টি ককটেল বোমা,


৫ টি সরকি, ৪ টা রাম দা, ৫ টি বেতের লাঠি সহ দেশীয় অস্ত্র সস্ত্র। এঘটনায় অভিযান চালিয়ে উভয় পক্ষের ১৪ জন আসামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হলেন–আশরাফুল (৩৮), আমিরুল (২৫), রাজু (২৮), সাগর (১৯), মিজানুর (২০), জালাল (৫০), সমির (৫৫), মনব্বর (৫২), জাহিদ (৩০), বিপুল (২০), সাগর (২০), জাহাঙ্গীর (৩৪), নেওয়াব (৫০) ও রবিউল (৩৮)।


এ তথ্য নিশ্চিত করে থানার ওসি (ভারপ্রাপ্ত) মামুনুর রশিদ বলেন, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে তুচ্ছ ঘটনায় রবি মালিথা ও আলফাজ মেম্বরের গ্রুপ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে সংঘর্ষ ছত্রভঙ্গ করে দেয় এবং ককটেল বোমাসহ বেশকিছু দেশীয় অস্ত্র সস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, এঘটনায় দুইটি পুলিশ বাদী মামলা দায়ের করা হয়েছে


এবং অভিযান চালিয়ে উভয় গ্রুপের ১৪ জনকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপার্দ করা হয়।বাকী আসামীদের গ্রেফতার করতে অভিযান অব্যহত রয়েছে। বিভিন্ন সুত্রে জানা গেছে, চাদপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক নজরুল ইসলামের সমর্থক ধলনগর গ্রামের রবি মালিথা এবং উপজেলা যুবলীগের সাবেক যুগ্ম আহ বায়ক ও চাদপুর ইউপি চেয়ারম্যান রাশিদুজ্জামান তুষারের


সমর্থক আলফাজ মেম্বর গ্রুপের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে এলাকার আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ চলে আসছিল। এরই সূত্র ধরে গত মঙ্গলবার সকালে দুইপক্ষের লোকজন ইট পাটকেল ঢাল সরকিসহ দেশীয় অস্ত্রে-সস্ত্র সজ্জিত হয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে আলফাজ মেম্বর গ্রুপের নারীসহ অন্তত ৪৫ জন আহত হয় এবং ২০টি বাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাংচুর ও লুটপাট চালানো হয়।


এছাড়াও সংঘর্ষে রবি মালিথা গ্রুপের আরো ২২ জন আহত হয়। এলাকাবাসীর অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, রবি মালিথার নেতৃত্বে উজ্জলসহ ১৫ থেকে ২০ জন দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় জমিদখল, চাঁদাবাজি, মাদক ব্যবসা নিয় ন্ত্রন সহ নানারকম সন্ত্রাসী কর্মকান্ড করে আসছে। আফজাল মেম্বর সহ এলাকাবাসী এসবের প্রতিবাদ করলে বেশ কয়েকবার তাদের সাথে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।



এর সূত্র ধরে গত মঙ্গলবার সকালে রবি মালিথাসহ ক্যাডার বাহিনী গ্রামবাসীর উপর হামলা ও লুটপাট চালায়।রবি মালিথার ভাই কলম মালিথা বলেন, তুষার চেয়ারম্যানের সমর্থক আলফাজ মেম্বরের লোকজন আমাদের উপর দীর্ঘদিন যাবৎ হামলা চালিয়ে আসছে।আজ সকালে পুনরায় ঢাল সরকি বাঁশের লাঠি ইট পাটকেল নিয়ে হামলা করলে আত্মরক্ষায় আমরাও হামলা করি।এতে আমাদের ২০ থেকে ২২ জন আহত হয়েছে।


শাহরিয়ার কবির / দৈনিক সংবাদপত্র 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here