করোনা আতঙ্কে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছুটির দাবি প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের

0
115
ফাইল ছবি
3 Shares

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধিঃ করোনা আতঙ্কে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) সকল একাডেমিক কার্যক্রম বন্ধ হলেও প্রশাসনিক কার্যক্রম বন্ধ করা হয়নি। ফলে আতঙ্কের মধ্যে দিয়েও প্রশাসনিক কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে কর্মকর্তারা। কর্মকর্তাদের দাবি, ইতোমধ্যে করোনা সতর্কতায় বেশকয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয় তাদের প্রশাসনিক কার্যক্রম বন্ধ করে দিয়েছে। সেক্ষেত্রে তারাও চাচ্ছেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক কার্যক্রম বন্ধ করা হোক হোক। ক্যাম্পাস সূত্রে জানা যায়, করোনা ভাইরাসের আতঙ্কে গত ১৬ মার্চ বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কার্যক্রম ও আবাসিক হল বন্ধের নির্দেশনা দেয় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। নির্দেশনা অনুযায়ী আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত ক্যাম্পাস বন্ধের ঘোষনা দেয় হয়। পরে গতকাল (১৯ মার্চ) ক্যাম্পাসে দর্শনার্থী ও বহিরাগত প্রবেশের নিষেধাজ্ঞাও জারি করেছে বলে জানা যায়।

পরিবহন দপ্তরের কর্মকর্তা মওদুদ আহমেদ বলেন, ‘করোনা সারাদেশে যেভাবে মহামারির মতো ছড়িয়ে যাচ্ছে তাতে ঘরে বসে থাকা ছাড়া আর কোনো উপায় নাই। বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস পরীক্ষা বন্ধ হয়ে গেছে তারপরও আমাদের ঝুকি নিয়ে দাপ্তরিক কাজ করতে হচ্ছে। দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান তাদের কার্যক্রম বন্ধ রেখেছে। বেশ কয়েকটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় তাদের প্রশাসনিক কাজ বন্ধ করে দিয়েছে। আমরাও চাই যেন আমাদের প্রশাসনিক কাজ বন্ধ ঘোষনা করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তা সমিতিরি সভাপতি ও একাডেমিক শাখার কর্মকর্তা শামছুল ইসলাম জোহা বলেন, ‘যেহেতু এই মহামারী ঠেকাতে আমাদের জনসমাগম এড়িয়ে চলার নির্দেশ রয়েছে।

সেক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের নতুন করে ভাবার সময় এসছে। দেশের সার্বিক প্রেক্ষাপটে সকলের কথা চিন্তা করে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক কাজ বন্ধ রাখা উচিৎ। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন-উর-রশিদ আসকারী বলেন, ‘কাল (২১ মার্চ) আমাদের কিছু গুরুত্বপূর্ণ দাপ্তরিক কাজ রয়েছে। কাজ শেষ করে আমরা একসাথে বসবো। সেখানে দেশের সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে ও অন্যন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে সামঞ্জস্য রেখে সিদ্ধান্ত দিব।

আজাহার ইসলাম / দৈনিক সংবাদপত্র 

3 Shares

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here