ইজারায় বাদ পড়ল আত্রাই নদীর ঝুঁকিপূর্ণ বালুমহাল

0
105
ফাইল ছবি
0 Shares

নওগাঁ প্রতিনিধিঃ নওগাঁর মান্দা উপজেলার মধ্য দিয়ে প্রবাহিত আত্রাই নদী। এই নদীর উজান ও ভাটি অংশ সরকারী নিয়ম অনুযায়ী টেন্ডার বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে ইজারা দেওয়া হয়ে থাকে। ইজারার পর বালু ইজারা মালিকেরা নিয়ম-নীতিকে তোয়াক্কা না করে ড্রেজার মেশিন দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে থাকেন। এতে করে বিভিন্ন রাস্তা- ঘাট, হাট- বাজার, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, মসজিদ-মন্দির,নদীর আশে-পাশের কৃষি জমিসহ স্থানীয় এলাকাবাসীদেরকে হুমকির সম্মুখীন হতে হয়।

এরই প্রেক্ষিতে স্থানীয়রা ক্ষুদ্ধ হয়ে ঝুঁকিপূর্ণ অংশের উপর গত ২৬ শে আগষ্ট ২০১৯ এবং ৪ নভেম্বর ২০১৯ ইং তারিখে পরপর দুটি অভিযোগ এনে জেলা প্রশাসকসহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগের অনুলিপি প্রদান করেন। এর ধারাবাহিকতায় “হুমকিতে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ” এবং “আত্রাই নদী থেকে বালু উত্তোলন” শিরোনামে বিভিন্ন জাতীয় এবং আঞ্চলিক পত্রিকায় খবর প্রকাশ হলে বিষয়টি জেলা প্রশাসকের নজরে আসে। এরপর, বিষয়টি খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা গ্রহণ করেন জেলা প্রশাসক।

উল্লেখ্য, ১৪২৬ সনে এবং তার পূর্বে মান্দার আত্রাই নদীর উজান অংশের আয়াপুর মৌজাতে ৩৪৯.১৮ ও দোসতিনা কালিকাপুর মৌজাতে ৫৫.৬৮ একর মিলে মোট ৪০৪.৮৬ একর বালু মহাল হিসেবে ইজারা প্রদান করা হতো। অথচ,আগামী ১৪২৭ সনের ইজারা বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখিত ৪০৪.৮৬ একর ঝুঁকিপূর্ণ বালু মহলের মধ্যে সংশোধন করে মাত্র ২৯৩.৫০ একর বালু মহাল ইজারা দরপত্র প্রকাশ করেছেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

১৪২৭ সনের বালুমহালে আয়াপুরের রাস্তা, কালিকাপুর বাজার, থানার মোড়, দোসতিনা এলাকার ঝুঁকিপূর্ণ বালু মহলের অংশ সংশোধিত বিজ্ঞপ্তিতে বাদ পড়ায় এলাকাবাসীদের মাঝে স্বস্থি দেখা গেছে। এজন্য স্থানীয় এলাকাবাসী সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

মাহবুবুজ্জামান সেতু / দৈনিক সংবাদপত্র 

0 Shares

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here